মানবেতর দিন কাটছে রাণীশংকৈলের দৃষ্টিপ্রতিবন্ধি আসাদুলের

প্রকাশিত: এপ্রিল ২৯, ২০২০

এক চোখে কিছুই দেখেন না, আরেক চোখে কাছের জিনিস কিছুটা দেখতে পান দৃষ্টি প্রতিবন্ধি আসাদুল। ভ্যানগাড়ীতে করে ঝাল মুড়ি বিক্রি করে সংসার চালাতেন তিনি। তবে এ ক্ষেত্রে তাঁকে তার পরিবার ও এলাকার লোকজন চলাচলের
জন্য সহযোগিতা করেন।

গত ২৬ মার্চ থেকে করোনা প্রার্দুভাব মোকাবেলায় সরকারী নিষেধাজ্ঞা থাকায় তার ঝাল মুড়ি বিক্রির ব্যবসা বন্ধ। তবে এর মধ্যে সংসারে চাল,ডাল, তরি-তরকারী না থাকায় স্ত্রী সন্তানদের খাওয়ার অভাব পূরণের জন্য বেরিয়েছিলেন ঝাল মুড়ির ভ্যানের দোকান নিয়ে। তা নিয়ে বেরিয়ে শহরে দাড়াতেই পুলিশ এসে তার ঝালমুড়ির ভ্যান গাড়ীর দোকানে লাঠি দিয়ে আঘাত করে তাকে বাড়ি পাঠিয়ে দেয়।

সে থেকে পরিবার নিয়ে কষ্টে আছেন এই দৃষ্টি প্রতিবন্ধি আসাদুল(৩০)। তার বাড়ী ঠাকুরগাঁও রাণীশংকৈল পৌর শহরের ৯ নং ওর্য়াডের মহলবাড়ী গ্রামে। তার পরিবারে দুই ছেলে স্ত্রী সহ মোট চারজন সদস্য।

সম্প্রতি(২৭এপ্রিল) আসাদুল তার দুই ছেলে রমজান(১২) ও সুজন(১০)কে সাথে নিয়ে রাণীশংকৈল প্রেস ক্লাবে আসে। এসে প্রেস ক্লাব সভাপতি ফারুক আহাম্মদ সরকারকে খুজে নিয়ে তার কষ্টের কথা বলেন।

আসাদুল বলেন, ‘আমি কি ত্রাণ পেতে পারি না। কেন পাইনি আমাকে কেউ বা কোন জনপ্রতিনিধি কিংবা প্রশাসনের লোক সামান্য সহযোগিতা করেনি। সরকারী এক দানা চাল বা ডাল পায় নি। অথচ মানুষের মুখে শুনছি সরকার কর্মহীনদের চাল
ডাল,আলু দিচ্ছে। আমি কেন পাচ্ছি না। তা আমি জানতে চাই?’

এ ব্যাপারে বক্তব্য নিতে বুধবার(২৯ এপ্রিল) উপজেলা নির্বাহী অফিসার মৌসুমী আফরিদার কার্যালয়ে বেলা তিনটার দিকে গিয়ে না পেয়ে একাধিবার ফোন দিলেও তিনি তাতে সাড়া দেন নি।