,
সংবাদ শিরোনাম :

১০ নভেম্বর থেকে পঞ্চগড়- ঠাকুরগাও-ঢাকা সরাসরি অন্তঃনগর ট্রেন

নিজস্ব প্রতিবেদক :প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঠাকরগাও বড় মাঠের জনসভায় পঞ্চগড় থেকে ঢাকা সরাসরি আন্তঃনগর ট্রেন চালু করার যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন তা বাস্তবায়ন হতে চলেছে। আগামী ১০ নভেম্বর থেকে এ রেল রুটে দুটি আন্তঃনগর ট্রেন চলাচল করবে। ঠাকুরগাঁও-পঞ্চগড়বাসীর দীর্ঘদিনের স্বপ্নের দাবি ছিল এটি।
পঞ্চগড় থেকে ঢাকা রেল যোগাযোগ চালু করার জন্য ঠাকুরগাও-পঞ্চগড়ের মানুষ দীর্ঘদিন ধরে দাবী জানিয়ে আসছিল। সেই দাবী পুরণের লক্ষ্যে ২০১০ সালে পঞ্চগড় থেকে দিনাজপুরের পার্বতীপুর পর্যন্ত ১৫০ কিঃমিঃ রেল লাইন আধুনিকায়ন ও ডুয়েলগেজে রূপান্তরিত করতে রেল মন্ত্রনালয়ের আওতায় ৯৮২ কোটি টাকার একটি উন্নয়ন প্রকল্পের কাজ শুরু হয়। ২০১৪ সালে কাজ শেষ হওয়ার কথা থাকলেও দফায় দফায় মেয়াদ বাড়িয়ে তমা কন্সট্রাশন এবং ম্যাক্্র ইন্টার ন্যাশনাল নামে দুটি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান ২০১৬ সালে রেল লাইনের সকল কাজ সম্পন্ন করে। এরপর ২০১৭ সালের জুলাই মাসে পঞ্চগড় থেকে ঢাকাগামী কানেকটিং ট্রেন চালু করা হয়। দু’জেলার রেল যাত্রীরা ঐ ট্রেনের করে দিনাজপুরে গিয়ে দিনাজপুর-ঢাকা রুটে চলাচলকারী আন্তঃনগর একতা ও দ্রুতযান এক্্রপ্রেসের মাধ্যমে ঢাকা চলাচল করার সুযোগ পায়। তবে এতে নানা বিড়ম্বনায় পড়তে হয় তাদের। এরপর এ রেল রুটে সরাসরি অন্তঃনগর ট্রেন চালু করার দাবীতে স্বারকলিপি পেশ, মানববন্ধন সহ বিভিন্ন কর্মসীচী পালন করে দু’জেলার মানুষ।
এ অবস্থায় গত ২৯ মার্চ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঠাকুরগাঁওয়ের জনসভায় পঞ্চগড়-ঢাকা রুটে সরাসরি আন্তঃনগর ট্রেন চালু করার প্রতিশ্রুতি দেন। প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের নির্দেশে এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয় রেল বিভাগ। সব রকম সার্ভে করে আগামী ১০ নভেম্বর থেকে দিনাজপুর- ঢাকা রুটে চলাচলকারী আন্তঃনগর একতা ও দ্রুতযান এক্্রপ্রেস ঐ রুটের পরিবর্তে পঞ্চগড়-ঢাকা রুটে চলচলের সিদ্ধান্ত গ্রহন করে সংশ্লিষ্ট দপ্তর।
গত ২৩ অক্টোবর রেলওয়ের পশ্চিম অঞ্চলের মহাব্যবস্থাপকের কাছে পাঠানো রেলওয়ের ট্রাফিক ট্রান্সপোর্টেশন বিভাগে উপ-পরিচালক খালিদুন নেছা স্বাক্ষরিত চিঠিতে বলা হয়, বর্তমানে ঢাকা-দিনাজপুরের মধ্যে চলাচলকারী দ্রুতযান এক্সপ্রেস এবং একতা এক্সপ্রেস ট্রেন একই ধরনের কোচ, কম্পোজিশনে লাল-সবুজ রংয়ে ইন্দোনেশিয়ান কোচ দিয়ে পরিচালনা করা হবে ট্রেন দুটি। ট্রেনগুলো তিনটি রেক দিয়ে চালানো হবে। বর্তমানে একতা এক্সপ্রেস ট্রেন সোমবার আর দ্রুতযান বুধবার বন্ধ থাকে। কিন্তু নতুন সময়সূচিতে অর্থাৎ পঞ্চগড়-ঢাকা লাইনে এই দুটি ট্রেনের সাপ্তাহিক কোনো বন্ধ থাকবে না।
ঠাকুরগাঁও রেলস্টেশন মাস্টার আকতারুল ইসলাম বলেন, ঢাকা থেকে পঞ্চগড় পর্যন্ত ৫০৭ কিলোমিটার দূরত্বের রুটটি বাংলাদেশ রেলওয়ের সবচেয়ে দীর্ঘ রুট। ১০ নভেম্বর সকাল ৭টা ২০ মিনিটে পঞ্চগড়ে দ্রুতযান এক্সপ্রেস উদ্বোধনের পর ৭টা ৫৮ মিনিটে ঠাকুরগাঁওয়ে পৌঁছবে এবং ৮টায় ঠাকুরগাঁও থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে রাওনা হবে। আবার রাতে একতা এক্সপ্রেস পঞ্চগড় থেকে ঠাকুরগাঁও হয়ে ৯টা ৪০ মিনিটে ছেড়ে যাবে।
রেলপথ মন্ত্রনালয় সংক্রান্ত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য ও ঠাকুরগাঁও-৩ আসনের এমপি অধ্যাপক ইয়াসিন আলী বলেন, ঠাকুরগাঁওয়ে বিশাল জনসভায় প্রধানমন্ত্রী যেসকল প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন, ধীরে ধীরে সবগুলোই বাস্তবায়ন হবে। এরই ধারাবাহিকতায় সরাসরি অন্তঃনগর ট্রেন চালু হচ্ছে।
ঠাকুরগাঁও চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি হাবিবুল ইসলাম বাবলু বলেন, এ রুটে কানেকটিং ট্রেনে দুটি জেলার মানুষের জন্য যে পরিমান টিকিট ছিল, তা প্রয়োজনের তুলনায় খুব কম। আশা করি আন্তঃনগর ট্রেনে পর্যাপ্ত পরিমাণ টিকিট পাওয়া যাবে। ট্রেন দুটি চালু হলে যাতায়াতের পাশাপাশি অর্থনীতিতে ইতিবাচক প্রভাব পড়বে।

print
(Visited 84 times, 1 visits today)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

সর্বশেষ সংবাদ