,
সংবাদ শিরোনাম :
» « পীরগঞ্জে চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেটের ভাবীর ইন্তেকাল» « পীরগঞ্জে স্বেচ্ছাসেবক লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত» « পীরগঞ্জে মশক নিধন ও পরিচ্ছন্নতা সপ্তাহ উপলক্ষে র‌্যালী» « বালিয়াডাঙ্গীর পাড়িয়া ইউনিয়নে জিল্লুর চেয়ারম্যান নির্বাচিত» « পীরগঞ্জে ছেলে ধরা সন্দেহে ব্রডব্যান্ড সংযোগ প্রদান কাজে নিয়োজিত কর্মীকে গন পিটুনি» « পীরগঞ্জে টিএন্ডটি রাস্তার সংস্কার কাজ শুরু» « পীরগঞ্জে পঞ্চগড় এক্্রপ্রেস ট্রেনের যাত্রা বিরতি চায় এলাকাবাসী» « জাতীয় নারী ফুটবল চ্যাম্পিয়নশীপে বাফুফের ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে ঠাকুরগাঁওয়ে বিক্ষোভ» « কাউকে গোনায় ধরেন না সানি লিওন» « গ্রামীণফোন ও রবির ব্যান্ডউইথ কমালো বিটিআরসি

পীরগঞ্জে ছেলে ধরা সন্দেহে ব্রডব্যান্ড সংযোগ প্রদান কাজে নিয়োজিত কর্মীকে গন পিটুনি

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥

ছেলে ধরা সন্দেহে ঠাকুরগাওয়ের পীরগঞ্জে ইন্টারনেট ব্রডব্যান্ড সংযোগ প্রদান কাজে নিয়োজিত একটি কোম্পানীর এক টেকনেশিয়ানকে আটক করে গন পিটুনি দিয়েছে জনতা। খবর পেয়ে উত্তেজিত জনতার হাত থেকে ঐ টেকনেশিয়ানকে উদ্ধার করেছে উপজেলা প্রশাসন। সোমবার দুপুরে উপজেলার লোহাগাড়া কলেজ এলাকায় এঘটনা ঘটে।
পীরগঞ্জ উপজেলা পরিষদের টেকনেশিয়ান মুনির জানায়, উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ে ইন্টারনেট ব্রডব্যান্ড সংযোগ প্রদানের জন্য ফাইবার এটম নামে একটি কোম্পানির লোকজন কয়েক দিন ধরে কাজ করছে। সোমবার দুপুরে ঐ কোম্পানীর টেকনেশিয়ান ইউনুস আলী খনগাও ইউনিয়ন পরিষদ এলাকায় ব্রডব্যন্ড ইন্টারনেট সংযোগের সার্ভে করতে যায়। এক পর্যায়ে চাদপুর উচ্চ বিদ্যালয়ে গেলে ঐ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক কামাল হোসেন টেকনেশিয়ান ইউনুসকে ছেলে ধরা সন্দেহে আটক করে মোটর সাইকেলে উঠিয়ে লোহাগাড়া বাজারে নিয়ে যায়। সেখানে ইউনুসকে ছেলে ধরা বলে জনতার হাতে তুলে দেয়। এ সময় জনতা ইউনুসকে মারপিট দিতে দিতে লোহাগাড়া কলেজ মাঠে নিয়ে যায়। সেখানে তাকে গন ধোলাই দেওয়া হয়। খবরটি মুহুর্তে ছড়িয়ে পরলে কলেজ মাঠে হাজার হাজার জনতার সমাগম ঘটে এবং তারাও উত্তেজিত হয়ে পড়ে। খবর পেয়ে থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে জনতাকে শান্ত করার চেষ্টা করেন কিন্তু জনতা শান্ত না হয়ে পুলিশের উপর চড়াও হয়। পরে উপজেলা নির্বাহী অফিসার এ ডব্লিউ এম রায়হান শাহ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করে উইনুসকে জনতার হাত থেকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে আসেন। পুলিশ জানায়, আহত টেকনেশিয়ান ইউনুস ঝালকাঠি জেলার রাজাপুর উপজেলার আধাখোলা গ্রামের আব্দুর রহমান হাওলাদারের ছেলে। খবর পেয়ে ব্রডব্যান্ড সংযোগ কাজে নিয়োজিত ঐ কোম্পানির উর্দ্ধতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে এসেছেন। তাদের পক্ষ থেকে এ ঘটনায় চাদপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সহ সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে থানায় মামলা কারা হবে বলে জানান টেকনেশিয়ান ইউনুস।
পীরগঞ্জ থানার ওসি বজলুর রশিদ জানান, ছেলে ধরা সন্দেহে এক জনকে মারপিট করার সময় পুলিশ গিয়ে তাকে উদ্ধার করে। আসলে সে ছেলে ধরা নয়। একটি বে সরকারী কোম্পানির কর্মী। তাকে যারা মারপিট করেছে তাদের বিরুদ্ধে এজাহার দিলে মামলা হবে।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার এ ডব্লিউ এম রায়হান শাহ বলেন, ইউনুস এর আগেও এ উপজেলায় কাজ করেছে। গুজবে কান দিয়ে মানুষ হটকারিতা করে তাকে মারপিট করেছে। এটা কাম্য নয়। সবাইকে এ বিষয়ে সচেতন থাকতে হবে।
উল্লেখ্য, জেলে ধরা আতংকে কয়েক দিন ধরে উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থী উপস্থিতির হার কমে গেছে। আতংক বিরাজ করছে অভিভাবক মহলে। কবে প্রশাসন বলছে, এটি সত্য নয়, গুজব।

print

(Visited 355 times, 1 visits today)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

সর্বশেষ সংবাদ