,
সংবাদ শিরোনাম :
» « পীরগঞ্জে স্বেচ্ছাসেবক লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত» « পীরগঞ্জে মশক নিধন ও পরিচ্ছন্নতা সপ্তাহ উপলক্ষে র‌্যালী» « বালিয়াডাঙ্গীর পাড়িয়া ইউনিয়নে জিল্লুর চেয়ারম্যান নির্বাচিত» « পীরগঞ্জে ছেলে ধরা সন্দেহে ব্রডব্যান্ড সংযোগ প্রদান কাজে নিয়োজিত কর্মীকে গন পিটুনি» « পীরগঞ্জে টিএন্ডটি রাস্তার সংস্কার কাজ শুরু» « পীরগঞ্জে পঞ্চগড় এক্্রপ্রেস ট্রেনের যাত্রা বিরতি চায় এলাকাবাসী» « জাতীয় নারী ফুটবল চ্যাম্পিয়নশীপে বাফুফের ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে ঠাকুরগাঁওয়ে বিক্ষোভ» « কাউকে গোনায় ধরেন না সানি লিওন» « গ্রামীণফোন ও রবির ব্যান্ডউইথ কমালো বিটিআরসি» « পীরগঞ্জে দুর্যোগ সহনীয় ঘড় নির্মান কার্যক্রম পরিদর্শন

পীরগঞ্জের বটতলা থেকে পল্লী বিদ্যুৎ পর্যন্ত রাস্তাটি কবে সংস্কার হবে?

নিজস্ব প্রতিবেদক

দীর্ঘ দিন ধরে সংস্কার না হওয়ায় ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জ পৌর শহরের কাজী নজরুল ইসলাম সড়কের বেহাল দশা হয়েছে। পিচ ও পাথর উঠে খানা খন্দে ভরে গেছে পুরো রাস্তাটি। ড্রেনেজ ব্যবস্থা না থাকায় স্বল্প বৃষ্টিতেই পানি জমে থাকছে রাস্তায়। বটতলা থেকে পল্লী বিদ্যুৎ পর্যন্ত রাস্তাটি র্দীর্ঘদিন ধরে চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়লেও সংস্কার হচ্ছে না।

পৌর কর্তৃপক্ষ বলছেন, এ রাস্তাটি এলজিইডি’র হওয়ার কারণে সংস্কার করতে পারছেন না তারা। আর এলজিইডি বলছেন, পর্যাপ্ত ফান্ড না থাকায় মেরামত করা সম্ভব হচ্ছে না।

স্থানীয়রা জানায়, পীরগঞ্জ পৌর শহরের প্রাণকেন্দ্র বটতলা হতে দক্ষিণে কাজী নজরুল ইসলাম সড়কটি অত্যন্ত ব্যস্ততম সড়ক। এ সড়ক দিয়ে পৌরসভার রঘুনাথপুর গ্রামের সরকারপাড়া, পানুয়াপাড়া, ঈদগা বস্তি ও মিত্রবাটি মহল্লার লোকজন চলাচল করে।এ সড়কে প্রাণি সম্পদ অফিস,পল্লী বিদ্যুতের জোনাল অফিস, টেলিফোন অফিস, ব্রাক অফিস, ইএসডিও এবং ঠেঙ্গামারা অফিস, রঘুনাথপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, ইংলিশ মিডিয়াম স্কুল, ইকো পাঠশালা, মহিলা কলেজ, আরএম বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় সহ বিভিন্ন জন গুরুত্বপূর্ণ প্রতিষ্ঠান এবং দোকান রয়েছে।

এছাড়াও উপজেলার দৌলতপুর, জাবরহাট, বৈরচুনা ও সেনগাও ইউনিয়নের লোকজন ও যানবাহন শহরে ঢুকার একমাত্র রাস্তা এটি। রাস্তাটি দিয়ে প্রতিনিয়ত হাজার হাজার মানুষের পাশাপশি শিক্ষার্থীরা এবং নানান প্রকার ভারী ও হালকা যান চলাচল করে। রাস্তাটি খানা খন্দে ভরে যাওয়ায় চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে সংশ্লিষ্টদের।

এদিকে রাস্তার পাশ্বে ড্রেন না থাকায় অল্প বৃষ্টিতেই রাস্তা জুড়ে পানি জমে থাকে। পানি নিস্কাশনের ব্যবস্থা না থাকায় যানবাহন চলাচলের ফলে জমে পানি কাদায় পরিণত হয় আর ঐ কাদা যুক্ত পানি ছিটকে কাপড় নষ্ট হয় পথচারীদের। খানা খন্দের কারণে যানবাহন চলাচলে প্রায়ই ঘটে দুর্ঘটনা।

সরকারপাড়া মহল্লা বাসিন্দা দেলওয়ার হোসেন দুলাল সরকার, সালাম সরকার, পল্লী বিদ্যুতের সামনের বিশিষ্ট ঠিকাদার মিজানুর রহমান সহ অনেকে বলেন, আমরা নিয়মিত ভাবে পৌর কর পরিশোধ করছি। অথচ নাগরিক সেবা পাচ্ছি না। রাস্তাটি ভাঙ্গাচোড়া। পানি জমে থাকে। চলাচলের অযোগ্য। এ এলাকার মানুষ রাস্তাটির জন্য চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছে। পৌরসভাকে বলা হচ্ছে। কিন্তু কাজ হচ্ছে না।

বথপালিগাও গ্রামের মকসেদ আলী নামে এক ব্যক্তি জানান, পল্লী বিদ্যুৎ অফিসে বিল দেওয়ার জন্য যাচ্ছিলাম। প্রাণি সম্পদ অফিসের দক্ষিণে চলন্ত একটি ট্রাক তাকে অতিক্রম করে। এসময় রাস্তায় জমে থাকা কাদা-পানি ছিটকে তার শরীরে পড়ে। এতে নষ্ট হয় পড়নের কাপড়। দৌলতপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান কার্তিক চন্দ্র রায় জানান, আমাদের ইউনিয়ন এলাকায় রাস্তাটি ভাল থাকলেও পৌরসভার অংশে অত্যন্ত খারাপ। আমরা যখন পৌরসভায় ঢুকি তখন ভোগান্তিতে পড়তে হয়। রাস্তাটির অবস্থা দেখে মনে হয় এটি প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চলের রাস্তার থেকেও খারাপ।

পৌর সভার প্রকৌশলী শাহজাহান আলী জানান, রাস্তাটি পৌরসভার নয়। এ কারণে তাদের পক্ষে কাজ করা সম্ভব হচ্ছে না। মেয়র স্যার,এটি নিয়ে বিভিন্ন সভায় কথা বলেছেন। এলজিইডি রাস্তাটি পৌরসভাকে দিয়ে দিলেই সংস্কার কাজ করা যাবে।

পৌর মেয়র কশিরুল আলম বলেন, রাস্তাটির খারাপ অবস্থা দেখে আমারও কষ্ট হয়। অনেক লোক আমাকে বকাঝোকাও করে। কিন্তু নিয়মের বেড়াজালে আটকা পড়েছে রাস্তা সংস্কার কাজ। আমি বিভিন্ন সভায় বিষয়টি তুলে ধরেছি। এলজিইডি কর্তৃপক্ষকে বলেছি, রাস্তা সংস্কার করতে অথবা পৌরসভাকে দিয়ে দিতে। তাদের পক্ষ থেকে কোন সদুত্তোর না পাওয়ায় আমি কিছু করতে পারছি না।

এলজিইডি’র উপজেলা প্রকৌশলী ইসমাইল হোসেন বলেন, রাস্তা সংস্কারের জন্য এই মুহুর্তে টাকা নেই। ঐ রাস্তাটির কথা উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। তারা সিদ্ধান্ত দিলেই হয়ত একটা ব্যবস্থা হবে।

print

(Visited 355 times, 1 visits today)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

সর্বশেষ সংবাদ